দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে বাড়ছে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসার জনপ্রিয়তা

ছবি : সংগৃহীত
দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য-কমপেক্সে চালু হয়েছে হোমিও প্যাথিক চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম। এতে বিনা মূল্যে চিকিৎসা পাচ্ছেন সুবিধাবঞ্চিত, অসহায় ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীরা। 

বাংলাদেশে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসার জনপ্রিয়তা দিনদিন বাড়ছে। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলের এর জনপ্রিয়তা অনেক। উপজেলাভিত্তিক সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে সরকার ১জন করে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়ায় এর চাহিদা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে।

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ২০২৩ সালের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত বহিঃ বিভাগে হোমিও চিকিৎসা নেওয়া রোগীর সংখ্যা ১৫ হাজার ৪৮৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ৫ হাজার ২৯৪ জন ও মহিলা ১০ হাজার ১৯২ জন। পরিসংখ্যান অনুযায়ী পুরুষের চেয়ে মহিলা রোগীর সংখ্যা দ্বিগুন।

এ ব্যাপ্যারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. তৌহিদুল আনোয়ার জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরকার হোমিও চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়ায় বহিঃ বিভাগ এ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসার অনেকটা চাপ কম হয়েছে। বিশেষ করে মহিলা রোগীরা হোমিও চিকিৎসায় বেশি আগ্রহী।

ঘোড়াঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হোমিও চিকিৎসক শামীম উদ্দীন জানান, তিনি যোগদানের পর থেকেই ভালো চিকিৎসা পাওয়ায় হোমিও চিকিৎসায় এখন অনেক রোগী আগ্রহ প্রকাশ করছেন। তিনি জানান, দেশের মোট জনসংখ্যার ৪০ভাগ মানুষ এখন হোমিও চিকিৎসার দিকে অগ্রসর হচ্ছে। তিনি আরও জানান, পুরোনো অনেক রোগ প্রায় পুরোপুরি নির্মূল সম্ভব হোমিও চিকিৎসার মাধ্যমে।

উল্লেখ্য গত ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ সালে হোমিও প্যাথিক মেডিকেল অফিসার হিসেবে যোগদান করেন ডাঃ শামিম উদ্দিন মাসুম। তিনি যোগদানের পর থেকে প্রতিদিন শত শত রোগী চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে ভীড় করছেন। 

Next Post Previous Post