চা পানে কী সত্যিই গায়ের রং কালো হয়ে যায়?

ছোটবেলা থেকেই আমরা একটা কথা প্রায়ই শুনে থাকি। সেটি হলো, চা বেশি খেলে নাকি গায়ের রং কালো হয়ে যায়। পাশাপাশি কালো হয়ে যায় ঠোঁট। অনেকে সামনাসামনি এই কথা তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিলেও মন থেকে সন্দেহটা একেবারে ঝেড়ে ফেলতে পারেন না। তাই বাইরে কিছু না বলেও ভেতরে ভেতরে চা খাওয়া নয় কমিয়ে দেন, নয়তো ছেড়ে দেন। কিন্তু, এই কথাটার আদৌ কী কোনও সত্যতা আছে? 

চর্ম বিশেষজ্ঞেরা বলছেন, মানুষের খুব বেশি চা পান করা উচিত নয়, কারণ এতে অনেক অ্যান্টি-নিউট্রিয়েন্ট থাকে, যা শরীরে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট কমিয়ে দেয়। ফলে চা কম খাওয়াই ভালো। কিন্তু, গায়ের রং বা ঠোঁট কালো হয়ে যাওয়ার কথাটা কি সত্যি?

তারা বলছেন, চা পান করার সঙ্গে ত্বকের রং বদলে যাওয়ার কোনও সম্পর্ক নেই। যারা ভাবেন যে, চা আপনার ত্বককে কালো করে দিতে পারে, তারা সম্পূর্ণ ভুল ভাবেন। চা পান করলে ঠোঁটের রং-ও কালো হয় না। গরম চা পান করলে উচ্চ তাপমাত্রার কারণে ঠোঁটে পিগমেন্টেশন হতে পারে, তবে অভ্যন্তরীণভাবে চা ঠোঁটের রংকে প্রভাবিত করে না।

ত্বকের রং কোনও কিছুতেই স্থায়ীভাবে কালো হয় না, বা কোনও কিছু মেখেও তা স্থায়ীভাবে উজ্জ্বল করা যায় না। আমকা অনেক ক্ষেত্রেই ফর্সা হওয়ার জন্য কসমেটিক ক্রিম ব্যবহার করে থাকি৷ এমনকি, চিকিৎসার মাধ্যমেও ত্বকের রঙ ফর্সা করার চেষ্টা করেন অনেকে, কিন্তু এর প্রভাব বেশি দিন স্থায়ী হয় না। ধীরে ধীরে ত্বক তার স্বাভাবিক রংয়ে ফিরে আসে।

শীতে ত্বক সুস্থ রাখতে প্রচুর জল পান করা উচিত এবং শরীরকে হাইড্রেটেড রাখা উচিত। মৌসুমি ফল ও সবজি খেতে হবে। এছাড়া, ভিটামিন সি সমৃদ্ধ প্রচুর পরিমাণে খাবার খেতে হবে। এটি প্রাকৃতিক উপায়ে মুখে উজ্জ্বলতা আনতে পারে।

Next Post Previous Post