মাছি যেভাবে খাদ্য গ্রহণ করে

 শক্ত খাদ্যকে তরলে পরিণত করতে তার ওপর বমি করে মাছি। সেই বমিতে থাকে প্রয়োজনীয় হজমকারী উত্‍‌সেচক, যা কঠিন খাবারকে তরলে পরিণত করতে সাহায্য করে। একবার খাবার নরম হয়ে গেলে মাছি তার মুখের সাহায্যে তা শুষে নেয়।

মাছি  Diptera বর্গের একদল পতঙ্গের সাধারণ নাম। প্রকৃত মাছিরা Brachycera উপবর্গের সদস্য এবং এদলে আছে ঘরের সাধারণ মাছি, ডাঁশ, ফলের মাছি (Fruit fly), সেটসি (Tsetse) মাছি ইত্যাদি। গুটিকয় প্রজাতির ডানাবিহীন মাছি ছাড়া অন্যান্য মাছি কেবল ওড়ার উপযোগী একজোড়া ডানা থাকে। পেছনের ডানাজোড়া পরিবর্তিত হয়ে ভারসাম্যরক্ষক হলটেয়ার (haltare) উপাঙ্গে রূপান্তরিত হয়েছে।

প্রায় ১৪০০ বছর আগে নাজিল হওয়া আল-কোরআনের বিশ্লেষণ করে মানুষ মঙ্গল গ্রহ পর্যন্ত পৌঁছেছে। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) ১৪০০ বছর আগে মাছি প্রসঙ্গে যে কথাটি বলেছিলেন, তা আমাদের আধুনিক বিজ্ঞানও মেনে নিয়েছে। বুখারি ও ইবনে মাজাহ হাদিসে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যদি তোমাদের কারো পাত্রে মাছি পতিত হয় সে যেন উক্ত মাছিটিকে ডুবিয়ে দেয়। কেননা তার একটি ডানায় রোগজীবাণু রয়েছে, আর অপরটিতে রয়েছে রোগনাশক ঔষধ’(বুখারি)।

Next Post Previous Post